সহজ উবুন্টু শিক্ষাঃ সফটওয়্যার ইন্সটলেশান সমাচার

আপনি নতুন উবুন্টুতে এসে পড়েছেন? কিন্তু সফটওয়ার কিভাবে ইন্সটল করবেন কোন দিশা পাচ্ছেননা? আন্দাজ করতে পারছি আপনি কি করেছেন। আপনি গুগলে সার্চ করে নিশ্চয়ই গিয়েছেন আপনার প্রয়োজনীয় সফটওয়ারের সাইটে। তারপর ডাউনলোড পেজে গিয়ে নিশ্চয়ই .tar.gz ফাইলটা ডাউনলোড করেছেন। এরপর এটা ওপেন করতে গিয়ে টের পেলেন যে এটা আসলে জিপ (.zip) টাইপের একটা ফাইল, কোন .exe ফাইল না। তারপর এর উপর মাউসের রাইট বাটন ক্লিক করে এটাকে এক্সট্রাক্ট করলেন। এক্সট্রাক্ট করা ফোল্ডারে ঢুকে এইবার আপনি দিশেহারা কারন সেখানে কোন setup.exe ফাইল নাই! এইবার কি হবে? দিশেহারা হয়ে লাভ নেই, বরং আসুন দেখি কিভাবে উবুন্টুতে কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করতে হয়।

  • একেবারে প্রাথমিক ধারণাঃ

আপনি উইন্ডোতে যেভাবে ফাইল ডাউনলোড করে সেটাকে ডাবল ক্লিক করে একগাদা নেক্সট-নেক্সট-নেক্সট-নেক্সট চেপে কোন সফটওয়ার ইন্সটল করেন, উবুন্টুতে ব্যাপারটা ঠিক সেরকম না। অন্যান্য লিনাক্সের মত উবুন্টুতেও একটা সফটওয়ার প্যাকেজ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম থাকে। একে বলা হয় APT (এ্যাপ্ট)। এ্যাপ্টের মাধ্যমেই বেশিরভাগ ব্যবহারকারি উবুন্টুতে সফটওয়্যার ইন্সটল করে থাকে। নিশ্চয়ই অবাক হচ্ছেন যে সফটওয়্যারের জন্য আবার ‘ম্যানেজমেন্ট’ কেন? কারণ উবুন্টুর বেশিরভাগ সফটওয়্যার থাকে গুদামঘরে। বলতে পারেন উবুন্টুর সফটওয়্যারের নিজস্ব ব্যাংক আছে। ব্যাংকের সাথে টাকাপয়সার লেনদেন যেমন নিরাপদ তেমনি উবুন্টুর সফটওয়্যার সেন্টার থেকে সফটওয়্যার ইন্সটল করাটা হচ্ছে নিরাপদ, এতে করে ভাইরাস ও অন্যান্য ক্ষতিকারক প্রোগ্রামের হাত থেকে সুরক্ষা নিশ্চিত হয়। এই গুদামঘরের সাথে আপনার কম্পিউটারের যোগাযোগের কাজ করে প্যাকেজ ম্যানেজার। আপনার কম্পিউটারে কি কি সফটওয়্যার আছে, কি কি নাই, কি কি ইন্সটল করতে পারবেন ইত্যাদি বিভিন্ন রকম তথ্য পাবেন এই প্যাকেজ ম্যানেজারের কাছে। আপনার এক গুদামঘরে পোষাচ্ছেনা? সমস্যা নেই, ইচ্ছা করলে আপনি অন্যান্য সফটওয়্যারের গুদামঘরও যোগ করতে পারেন। যেমন ধরুন আপনি গুগলের গুদাম ঘর যোগ করতে চান, যাতে করে গুগল ক্রোম বা পিকাসার মত সফটওয়্যারগুলো আপনি সহজেই আপনার কম্পিউটারে ইন্সটল করতে পারেন। সেটাও করে ফেলতে পারবেন, তবে এই লেখার বিষয়বস্তু যেহেতু কেবলমাত্র সফটওয়্যার ইন্সটলেশান নিয়ে তাই গুদামঘর যোগ করার পদ্ধতি এখানে আলোচনা করা জয়নি। এভাবে শুধু গুগল না বরং বিভিন্ন সফটওয়্যারের গুদামও যোগ করে ফেলতে পারবেন। এই গুদামঘরগুলোকে উবুন্টুতে বলা হয় রিপোজিটরি (Repository), সংক্ষেপে ‘রিপো’। যাই হোক, উবুন্টুতে সফটওয়্যার ইন্সটলের বেশ কয়েকটি পদ্ধতি আছে, আসুন একে একে দেখে নিই পদ্ধতিগুলো।

  • উবুন্টু সফটওয়্যার সেন্টারঃ (Ubuntu Software Center)

আগেই বলেছি উবুন্টুর সফটওয়্যারগুলো গুদামঘরে থাকে, যেগুলোকে রিপোজিটরি বা রিপো বলা হয়ে থাকে। এইসব গুদামঘরকে ঠিকঠাকমত গুছিয়ে ব্যবহার করার একটা চমৎকার উপায় হচ্ছে ‘উবুন্টু সফটওয়্যার সেন্টার’ ব্যবহার করা। উপরের প্যানেলের Applications মেন্যুতে Ubuntu Software Center পাওয়া যাবে।

সফটওয়্যার সেন্টারটি দেখতে নিচের ছবির মত। নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে যে এর কাজই হচ্ছে সব ধরনের সফটওয়্যার ম্যানেজ করা। এখান থেকে আপনি যেকোন সফটওয়্যার খুঁজে বের করে সেটা ইন্সটল বা আন্সটল করতে পারবেন। এমন কি অন্যান্য রিপোও যুক্ত করতে পারবেন। বিভিন্ন সফটওয়্যার এতে ভাগ অনুযায়ী সাজানো থাকে (যেমন ফন্টের জন্য Fonts বিভাগ বা বিভিন্ন গেমের জন্য Games বিভাগ ইত্যাদি), তাই সফটওয়্যার খুঁজে পেতে কোন সমস্যাই না। তাছাড়া বড় করে Featured Applications লেখা অংশে ক্লিক করলে বিশাল সফটওয়্যারভান্ডার থেকে বাছাই করা জনপ্রিয় ও কাজের সফটওয়্যারগুলোর একটা সংক্ষিপ্ত তালিকা পাবেন। ফলে সফটওয়্যার খোঁজার কষ্ট অনেকটুকুই লাঘব হয়ে যায়।

সফটওয়্যার খুঁজে পাবার কাজ আরো সহজ করার জন্য এতে উপরে ডান পাশে একটা সার্চ অপশন আছে। সেখানে যে কোন সফটওয়্যারের নাম লিখে সার্চ করলেই সেটি পেয়ে যাবেন। যদি নাম না জানা থাকে তাহলেও সমস্যা নেই, যে ধরনের সফটওয়্যার দরকার সেটা লিখলেই হবে, যেমন ধরুন আপনি অডিও প্লেয়ার চাচ্ছেন কিন্তু নাম জানেননা। সার্চ বক্সে গিয়ে audio player লিখে সার্চ দিন দেখবেন নিচের ছবির মত একগাদা প্লেয়ারের লিস্ট দেখাচ্ছে।

যেকোন প্লেয়ারের নীচে More Info এবং Install নামে দুটি বাটন দেখা যাচ্ছে। প্রতিটি প্লেয়ারের নীচের More Info বাটনে ক্লিক করলে সেটা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাবেন। আর ডান পাশের Install বাটনে ক্লিক করলে প্লেয়ারটা ইন্সটল হয়ে যাবে। যেকোন সফটওয়্যার এভাবে খুঁজে বের করে ইন্সটল করা সম্ভব।

  • সিনাপ্টিক প্যাকেজ ম্যানেজারঃ (Synaptic Package Manager)

এটাও সফটওয়্যার সেন্টারের মত একই গুদাম ব্যবহার করে,কিন্তু এটা দেখতে কিছুটা অন্যরকম,মানে চেহারাসুরৎ একটু রষকষহীন! যেহেতু একই গুদাম ব্যবহার করে তাই সফটওয়্যার সেন্টারে যেসব সফটওয়্যার পাবেন, তার সবগুলোই আবার এখানেও পাবেন। অর্থাৎ একই সফটওয়্যার আপনি সিনাপ্টিক দিয়েও ম্যানেজ করতে পারেন আবার সফটওয়্যার সেন্টার দিয়েও ম্যানেজ করতে পারেন। সিনাপ্টিক সাধারণত কিছুটা এ্যাডভান্সড ব্যবহারকারিদের জন্য। সিনাপ্টিকে যেতে হলে System -> Administration -> Synaptic Package Manager এ গিয়ে ক্লিক করুন।

সিনাপ্টিক খোলার সময় আপনার পাসওয়ার্ড দরকার হবে। পাসওয়ার্ড দিয়ে দিলেই পুরো সিনাপ্টিক প্যাকেজ ম্যানেজার নীচের ছবির মত আপনার সামনে ওপেন হবে।

এতে দেখবেন যে উপরের ডান পাশে Quick Search নামে একটা সার্চ ফিল্ড আছে, আপনার প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারটি নাম লিখে সেখানে সার্চ করুন। যেমন যদি ভিএলসি প্লেয়ার ইন্সটল করতে চাইলে vlc লিখে সার্চ করুন, দেখবেন একগাদা সফটওয়্যারের লিস্টি চলে আসবে। তালিকার একেবারেই শুরুতে আপনার কাংক্ষিত সফটওয়্যার পেয়ে যাবেন। যাই হোক আমরা vlc নিয়ে কাজ করছিলাম, তাই একদম শুরুতেই যে vlc পাবেন তাতে রাইট ক্লিক করুন। Mark for Installation অপশনটিতে ক্লিক করুন, দেখবেন যে এতে করে সিনাপ্টিকে থাকা আপনার সফটওয়্যার প্যাকেজ(গুলো) সব সিলেক্ট হয়ে গিয়েছে।

এখন সিনাপ্টিকের বড়সর Apply বাটনটাতে ক্লিক করলে দ্রুম করে সব প্রয়োজনীয় ফাইল ডাউনলোড হয়ে পুরো সফটওয়্যার ইন্সটলড হয়ে যাবে।

  • .ডেবঃ (.deb)

এ পদ্ধতিকে অনেকটা উইন্ডোজের সেটাপ (setup.exe) ফাইলগুলোর সাথে তুলনা করা যায়। উবুন্টুতে .deb এক্সটেনশনওয়ালা কিছু ফাইল থাকে যেগুলোকে ডাবল ক্লিক করে ইন্সটল করতে হয়। তাই কোন .deb ফাইল ডাউনলোড করেও আপনি সহজেই কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করতে পারবেন। যেমন ধরুন আপনি গুগলের ক্রোম ব্রাউজার ইন্সটল করতে চান। প্রথমেই গুগল ক্রোমের সাইটে যান, গেলেই দেখবেন যে .deb ডাউনলোড করার অপশন আছে সেখানে।

ব্যাস! ডাউনলোড করে ফেলুন। তারপর যেখানে ডাউনলোড হয়েছে (ডিফল্টভাবে Places -> Downloads) সেখানে গিয়ে .deb ফাইলটা খুঁজে বের করুন। তারপর সেটাকে ডাবল ক্লিক করুন। ডাবল ক্লিক করলে দেখবেন যে একটা উইন্ডো খুলবে যেখানে Install লেখা একটা বাটন আছে ঠিক নীচের ছবিটার মত।

ইন্সটল বাটনে ক্লিক করলে আপনার পাসওয়ার্ড চাইবে, পাসওয়ার্ড দেয়া হয়ে গেলেই সফটওয়্যারটা ইন্সটলড হয়ে যাবে, আর কিছু করার দরকার নেই।

  • কমান্ড লাইন ব্যবহার করেঃ

উবুন্টুতে সফটওয়্যার ইন্সটলের সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হচ্ছে কমান্ড লাইন ব্যবহার করে ইন্সটলেশান করা। প্রশ্ন আসতে পারে, তাহলে কেন এই পদ্ধতিটাকে সবার আগে লিখিনি? কারণ লোকজন কমান্ড লাইনে কোন কাজ করতে এম্নিতেই ভয় পায়, তাই যদি প্রথমেই এই লেখাটা কমান্ড লাইনে ইন্সটল পদ্ধতি দিয়ে শুরু করতাম তাহলে লোকজন পালিয়ে কূলকিনারা পেতনা। কমান্ড লাইনে কাজ করার জন্য আপনাকে টার্মিনাল খুলতে হবে, এজন্য Applications -> Accessories -> Terminal এ যান। টার্মিনাল নিয়ে যদি কাজ করার কোন অভিজ্ঞতা না থাকে বা ভয়ের কারনে যদি টার্মিনাল ব্যবহার করতে সাহস না লাগে, তাহলে এই লেখাটি পড়ে দেখতে পারেন। যাই হোক টার্মিনাল ওপেন হয়ে গেলে নিচের মত কমান্ড দিতে হবেঃ

sudo apt-get install SOFTWARE_NAME

এখানে SOFTWARE_NAME অংশে আপনি যে সফটওয়্যারটি ইন্সটল করতে চান তার নাম উল্লেখ করবেন। যেমন যদি ভিএলসি প্লেয়ার ইন্সটল করতে চান তবে টার্মিনালে লেখা আপনার কমান্ডটি হবে নিচের মতঃ

sudo apt-get install vlc

এই কমান্ডটি লিখে এন্টার (Enter) চাপলে আপনার পাসওয়ার্ড চাইবে, পাসওয়ার্ড দেয়া হয়ে গেলে সফটওয়্যারটি ইন্সটল হয়ে যাবে।

  • .tar.gz থেকে ইন্সটল করাঃ

অনেক জায়গাতেই .tar.gz আকারে ফাইল থাকে। এগুলো হচ্ছে সোর্স ফাইল, যা কিনা আপনাকে নিজেকে কম্পাইল করে তারপর চালাতে হবে। এই পদ্ধতিটা কিছুটা ঝানু ব্যবহারকারিদের জন্য। একাজের জন্য প্রথমেই পিসিতে build-essential প্যাকেজটা থাকতে হবে। এটা ইন্সটল করতে নীচের কমান্ডটা রান করাতে হবেঃ

sudo apt-get install build-essential

তারপর একে একে নীচের কমান্ডগুলো চালাতে হবেঃ

./configure
make
sudo make install

এটা হচ্ছে একদম সাধারণ নিয়ম। এটার সাথে এ্যাপ্লিকেশন ভেদে কিছু কিছু জিনিস যোগ হয়। এই পদ্ধতি সম্পর্কে আরো বিস্তারিত দেখতে এখানে দেখুন।

  • .rpm থেকে ইন্সটল করাঃ

.deb এর মত .rpm ও আরেকটি এক্সটেনশান যেটা দিয়ে সফটওয়্যার ইন্সটল করা সম্ভব। উবুন্টুকে তৈরি করা হয়েছে ডেবিয়ান নামের আরেকটি লিনাক্স-ভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেমের উপর ভিত্তি করে। ডেবিয়ান যেহেতু .deb ফাইল দিয়ে কোন সফটওয়্যার ইন্টল করতে পারেসেহেতু ডেবিয়ানের উপর তৈরি বলে উবুন্টুও .deb দিয়ে কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করতে পারে। .rpm হচ্ছে রেডহ্যাট অপারেটিং সিস্টেমের জন্য সফটওয়্যার ইন্সটল করার প্রয়োজনীয় ফরম্যাট। রেডহ্যাট, ফেডোরা, স্যুযেসহ বেশ কয়েকটি অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার ইন্সটল করতে .rpm ফরম্যাট ব্যবহার করে। তাই উবুন্টু .rpm ফাইল পড়তে পারেনা। আপনি ইচ্ছা করলে .rpm ফাইলকেও উবুন্টুতে ইন্সটল করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে alien (এলিয়েন) নামের একটি সফটওয়্যার ইন্সটল করতে হবে যেটা কিনা .rpm ফাইলকে .deb এ পরিবর্তিত করতে পারে। এলিয়েন দিয়ে সফটওয়্যার ইন্সটলেশানের বিস্তারিত পদ্ধতি পাবেন এইখানে

পূর্বে প্রকাশিতঃ

Advertisements
Comments
14 Responses to “সহজ উবুন্টু শিক্ষাঃ সফটওয়্যার ইন্সটলেশান সমাচার”
  1. নিরব হাসি বলেছেন:

    দারুন এককথায়।

  2. Tareq বলেছেন:

    সাধু সাধু…

  3. amin বলেছেন:

    বিরাট ঝামেলায় আছি। কোনভাবেই উবুন্টু বা মিন্ট দুইটার কোনটা ইনষ্টল করতে পারছি না। প্রযুক্তি ফোরামে গতকাল প্রশ্ন করেছিলাম, একদিন হইলো,কোন উত্তর নাই। ভালো।
    আসুস ল্যাপটপ, গ্রাফিক্স কার্ড এনভিডিয়া। ইনষ্টল দিলে বুট হবার পর পাচটা ডট দেখায়, ওখানে রং আসা যাওয়া করে। তারপর ফাটা ফাটা নীল হলুদ কমলা রং বক্স এসে চুপচাপ বসে থাকে।
    ইনষ্টল ইনসাইড উইন্ডোজ দিলে কিছুক্ষণ পর রিষ্টার্ট নেয়, তারপর সেই একই অবস্থা।
    ইউএসবি থেকে বুট করে না।
    উবুন্টু ৮.০৪ ইনষ্টল হয় ঠিকমতো। কিন্তু রেজুলেশন খুব কম। বিশাল বড় বড় আইকন আর টেক্সট মাত্র কয়েক লাইন পুরো স্ক্রীণ জুড়ে।

  4. amin বলেছেন:

    সরি ভাই, প্রযুক্তি আর প্রজন্ম দুটার মাঝে এলোমেলো হয়ে গেছে। এ দুই দিনে ফোরামগুলো প্রথম দেখছি তো 🙂

    প্রশ্ন রেখেছিলাম নিচের লিংকে।
    http://forum.projanmo.com/topic16776.html

    ওখানে একটা লিংক পেলাম, এখন দেখছি।
    যাইহোক, আমার টেকি জ্ঞান না থাকায় সমস্যায় পড়ছি। গত দুইতিন ঘন্টা যাবত চেষ্টা করছি ইংলিশে সার্চ দিয়ে সমাধান পেতে। এখনো পাইনি। 😦

    সমস্যা সম্ভবত প্রসেসর টিফোরটুহান্ড্রেড অথবা এনভিডিয়া কার্ডের সাথে হচ্ছে। ইনষ্টল করে অথবা না করে দুভাবেই চেষ্টা করছি আবার। ইনষ্টলেশন প্রসেস চলতে থাকে, উবুন্টুর নাম আর নিচে প্রগ্রেস বার। দুই তিন মিনিট পর যখন একটা উইন্ডো আসার কথা তখন স্ক্রীণে কয়েকটা বক্স এসে হল্ট হয়ে যায়।

  5. sukhon বলেছেন:

    আমি দুইদিন আগে উবুন্তু ইনস্টল দিলাম ল্যাপটপে। আগে windows 7ছিল। এখন দুইটাই আছে। আমি বলতে চাচ্ছি যে software ইনস্টল করতে তো নেট লাগবে।
    আমি যখন গান চালাতে গেলাম তখন তা কোড updet করতে বলছে।

    • অভ্রনীল বলেছেন:

      সফটওয়্যার অনলাইনেও করা যায় আবার অফলাইনেও করা য়ায়। যেহেতু দোকানে উবুন্টুর সফটওয়্যার পাওয়া যায়না সেহেতু অনলাইন থেকেই নামাতে হবে বা অন্য কারো কাছ থেকে সংগ্রহ করতে হবে। গানের জন্য এখানে দেখুন

  6. Ripon Majumder বলেছেন:

    চমৎকার এ পোষ্টের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ। এতো সুন্দর বুঝিয়ে দিয়েছেন যে, একটু আগে উবুন্টুতে জুম আলট্রা মডেম কনফিগার নিয়ে পোষ্টটি পড়ে উবুন্টু সম্পর্কে যে ভয় তৈরী হয়েছিলো, তা কেটে গেলো। উবুন্টুতে জুম (আলট্রা নয়) মডেম কনফিগার নিয়ে আপনার সাবলীল ভাষায় একটি পোষ্ট করলে আমাদের মতো নতুন উবুন্টু ইউজারদের জন্য খুব ভালো হতো।

    • অভ্রনীল বলেছেন:

      কেন ভাই! কমান্ড দেখে ঘাবড়ে গিয়েছেন বুঝি? আসলে কমান্ডের কাজগুলো মাউস ক্লিকে করা সম্ভব, কিন্তু অনেকক্ষণ সময় লাগে দেখে কেউ ঐ পথে যায়না। ধরুন কোন কিছু ইন্সটল করতে হলে মাউস দিয়ে টিপে টিপে কয়েকধাপে সেটা করতে হয়, কিন্তু কমান্ড দিলে এক লাইনেই শেষ। তাও আপনাকে কমান্ড মুখস্ত করতে হবেনা, শুধু কপিপেস্ট করে দেবেন- কাহিনী শেষ! আর কমান্ড নিয়ে যদি ভীতি কাজ করে তাহলে নীচের লিংকটা পড়ে দেখুন, ভীতি থাকারই কথা না।
      http://wp.me/pMz6Z-1G

  7. Sumon বলেছেন:

    password to ney na

Trackbacks
Check out what others are saying...
  1. আড্ডা ব্লগ বলেছেন:

    ๑۩♥۩ গুগল ক্রোমের জোসসস্ কিছু এডঅন (এক্সটেনশন) সংগ্রহ করুন ۩♥۩๑…

    I found your entry interesting thus I’ve added a Trackback to it on my weblog :)…



মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: